টিউশন - পর্ব ১

ভার্সিটি জীবনের প্রথম টিউশন।

মোঃ ইমরুল হাসান, সহকারী পুলিশ সুপার | প্রকাশিত: ২৩ অক্টোবর ২০২০ ২২:২৫; আপডেট: ২৪ অক্টোবর ২০২০ ১৮:০৬

ছবি- মোঃ ইমরুল হাসান
ভার্সিটি জীবনের প্রথম টিউশন...
 
১ম বর্ষে পড়ার সময় হামজারবাগে টিউশন করি ৷ স্টুডেন্ট একজন ৪র্থ শ্রেণী ও অন্যজন হাতেখড়ি ৷ সন্ধ্যার দিকে যেতাম ৷ রাগী ছিলাম ৷ ৪র্থ শ্রেণীর স্টুডেন্ট কে যতই পড়াতাম তারপর দিন কোন পড়াই দিতে পারতো না ৷ বাবা বিদেশে থাকত ৷ মা কে উদাসীন মনে হতো ৷ একটু প্রহার করতাম ৷ একনাগারে অনেকদিন করি ৷ বাবাও বিদেশ থেকে আসে ৷ আমার খুব খাতির যত্ন করেন ৷ তারপর বাবা আবার বিদেশে চলে যান ৷
 
সমস্যা বাঁধে অন্য জায়গায়! স্টুডেন্ট এর বাবা যতদিন বাড়ী ছিলেন ততদিন একজন লোকের প্রবেশ ঘরে দেখিনি ৷ ঐ ব্যক্তি এর আগে প্রতিদিন ঘরে আসতো ৷ স্টুডেন্ট এর মা আর ঐ ব্যক্তি রুমে দরজা বন্ধ করে আড্ডা দিতো ৷ স্টুডেন্ট এর বাবা থাকাকালীন এ লোকের আগমন না হওয়াটা আমার কাছে অস্বাভাবিক লাগে ৷ আমি ভেবেছি কোন আত্মীয় হবেন! বিদেশে যাবার সময় স্টুডেন্ট এর বাবা আমাকে বিদেশের নাম্বার দিয়ে যান ৷ একদিন ওনাকে মিসড কল দিই ৷ ওনি সাথে সাথে কল ব্যাক করেন ৷ আমি পুরো ঘটনা খুলে বলি ৷ ওনি শুনে থমকে যান! সত্যি বলতে- আমি বলতে চেয়েছিলাম- বাসায় স্টুডেন্ট এর পর্যাপ্ত কেয়ার নেওয়া হয় না ৷ এটা বলতে গিয়ে ঐ ব্যক্তির প্রসঙ্গ আসে ৷
 
তো যথারীতি পরবর্তী মাস থেকে স্টুডেন্ট এর মা আমাকে ফোন দিয়ে যেতে নিষেধ করেন ৷ ওনারা নাকি বাড়ি চলে যাবেন ৷
এভাবে শেষ হয় একটা টিউশন... অপেক্ষায় থাকি পরবর্তী টিউশনের ৷ চলমান...


বিষয়:



এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top