গণচীনের একটি স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল;

অর্ন্তদেশীয় মঙ্গোলিয়া ভ্রমণ।

শেরপুর ট্রিবিউন | প্রকাশিত: ২৪ অক্টোবর ২০২০ ০৮:৩৮; আপডেট: ২৪ অক্টোবর ২০২০ ১৪:০৬

ছবিঃ নির্ঝর আলম সাম্য
অর্ন্তদেশীয় মঙ্গোলিয়া গণচীনের একটি স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল। এর আয়তন ৩০২ মিলিয়ন একর, যা চীনের মোট ভূমির ১২ শতাংশ। হোহহোট হচ্ছে অর্ন্তদেশীয় মঙ্গোলীয় স্বায়ত্বশাসিত অঞ্চলের রাজধানী। অর্ন্তদেশীয় মঙ্গোলিয়ায় প্রায় ২ কোটি ৫০ লক্ষ লোক বাস করে।
 
অর্ন্তদেশীয় মঙ্গোলীয় স্বায়ত্বশাসিত অঞ্চলের সাথে রাশিয়া এবং মঙ্গোলিয়ার সীমান্ত রয়েছে। ১৯৪৭ সালে স্বায়ত্বশাসিত অঞ্চলটি কানসু এবং নিংশিয়াং প্রদেশের উত্তর অংশের পাশাপাশি অতীতের সুয়ুয়ান, চাহর, রেহ, লিয়াবেই এবং জিংআন প্রদেশগুলির নিয়ে গঠন করা ছিল। অর্ন্তদেশীয় মঙ্গোলিয়ার প্রধান শহরগুলোর মধ্যে রাজধানী হোহহোট সেইসাথে হুলানবুইয়ার, ওরডোস, টংলিয়াও, উলানকাব, উহাই বাওতাউ এবং বাইয়ান নুর শহর। অন্তর্দেশীয় মঙ্গোলিয়া দেশটির ২৩ তম জনবহুল প্রদেশ-স্তরের বিভাগ।
 
 
চীনে আসার পরপরই চেঙ্গিস খানের মঙ্গোলিয়ার সংস্কৃতি সম্পর্কে জানার আগ্রহ ছিল। ৪ অক্টোবর ২০১৯ বেইজিং থেকে অর্ন্তদেশীয় মঙ্গোলিয়ার উদ্দেশ্যে যাত্রা করি। CET-Trip নামের একটি ভ্রমন এজেন্সির ৩ দিনের প্যাকেজ প্রোগামে গিয়েছিলাম। ভ্রমন প্যাকেজে গ্রাসল্যান্ড, মরুভূমি, মৃত আগ্নেয়গিরি ও মঙ্গোলীয় সংস্কৃতির কিছু বিনোদন একটিভিটিস অর্ন্তরভুক্ত ছিল। বেইজিং থেকে গ্রাসল্যান্ড ভ্রমণে রাস্তার দুপাশে সুন্দর প্রাকৃতিক দৃশ্য উপভোগ করার মতো। ঐতিহ্যবাহী মঙ্গোলিয়ান ইয়ার্টে আমাদের থাকার ব্যবস্থা করা হয়। সেখানে তৃণভূমিতে সূর্যোদয় উপভোগ করা যায়। মরুভূমিতে বালি অন্বেষণ, উটের যাত্রা, বালির স্লাইডিং, গ্লাইডার উড়ন্ত, মোটর রেসিং ইত্যাদি বৈশিষ্ট্যযুক্ত মরুভূমির বিনোদন ছিল উল্লেখযোগ্য।
 
গ্রাসল্যান্ড হর্স রাইডিং ছিল এক ব্যতিক্রমী অভিজ্ঞতা। ডারসেট উট রাইডিং মরুভূমি ভ্রমনের পূর্ণতা এনে দেয়। বালির স্লাইডিং, গ্লাইডার উড়ন্ত, মোটর রেসিং ইত্যাদি একটিভিটিস মরুভূমিকে মানুষের বিনোদনের চারনভূমিতে পরিনত করেছে। ভোকালেনা গ্রাসল্যান্ডের বিস্তৃত চারণভূমিতে ৩০টিরও বেশি মৃত আগ্নেয়গিরি ও বিভিন্ন ধরণের আঁশ রয়েছে। এসব কিছু এক স্মরণীয় অভিজ্ঞতা। অন্তর্দেশীয় মঙ্গোলিয়ার পূর্ব অঞ্চলে আগ্নেয়গিরি একটি সাধারণ দৃশ্য। উত্তরের গ্রেটার খিংগান পর্বতমালার আগ্নেয়গিরির গুচ্ছ থেকে শুরু করে আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুত্পাত অঞ্চল রয়েছে যা আরকসান পর্বত-চাই নদীর আগ্নেয়গিরি গুচ্ছ এবং জিলিনহোট-অ্যাবাগা আগ্নেয়গিরি গুচ্ছ থেকে দক্ষিণে চাহার ডান পিছনের ব্যানারের ওলানহদা আগ্নেয়গিরি ক্লাস্টারে পৌঁছেছে। এসব প্রত্নতাত্ত্বিক বিষয় ছাড়াও মঙ্গোলিয়া সংস্কৃতির এক সুন্দর অভিজ্ঞতা অর্জনের সুযোগ হলো অন্তর্দেশীয় মঙ্গোলিয়া ভ্রমণ, যা চায়নার ভিতরেই সম্ভব হচ্ছে। ভ্রমণের অভিজ্ঞতা সবসময়ই আনন্দের। জীবন অনেক সুন্দর। আল্লাহ মহান।
 
লেখাঃ নির্ঝর আলম সাম্য।


বিষয়:



এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top