নালিতাবাড়ীতে শিক্ষক ও দপ্তরীর ওপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

হারুন অর রশিদ | প্রকাশিত: ৬ অক্টোবর ২০২১ ২০:৫৪; আপডেট: ২০ অক্টোবর ২০২১ ২০:২৮

ছবি: শেরপুর ট্রিবিউন

শেরপুরের নালিতাবাড়ীর নাজমুল স্মৃতি কলেজের সাবেক ভিপি ও জিএস, নালিতাবাড়ী উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক, তারাগঞ্জ সরকারী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক তৌহিদুল ইসলাম খোকন ও দপ্তরি আকাব্বরের উপর বর্বরোচিত হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে নালিতাবাড়ীর ছাত্র সমাজ।

বুধবার (৬ অক্টোবর) সকালে উপজেলা পরিষদের সম্মুখ সড়কে হামলাকারীদের গ্রেফতার দাবিতে প্রতিবাদ বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেছে বিভিন্ন স্কুলের ছাত্র ছাত্রীরা। অনতিবিলম্বে সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষককে মেরে ফেলার উদ্দেশ্যে যে সকল সন্ত্রাসীরা তাদের স্যারকে গুরুতর আহত করেছে তাদের কঠিন শাস্তি দাবি করেছে মানববন্ধনে উপস্থিত শিক্ষার্থীরা। এসময় ১০ম শ্রেণির শিক্ষার্থী মাহমুদুল ইসলাম মাহী এর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, শিক্ষার্থী গোলাম রব্বানী জাহিন, তালহা, সাঈদ, কাইছ, মুহিব, টনিসহ অন্যান্যরা।

জানা গেছে, গত ১ অক্টোবর তারাগঞ্জ সরকারী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ফুটবল খেলার উদ্বোধনী খেলা উপভোগ করতে স্কুল ভবনের টিনের চালে ওঠে কিছু লোক। বাধা দেয় ওই স্কুলের দপ্তরী। এতে দপ্তরী আকাব্বরকে মারধর শুরু করে দুর্বৃত্তরা। এসময় শিক্ষক তৌহিদুল ইসলাম খোকন ফেরাতে গেলে হামলাকারীরা খোকনকে আঘাত করে। মাথায় ধরালো অস্ত্রের আঘাতে খোকন গুরুতর আহত হয়ে অজ্ঞান অবস্থায়পড়ে থাকে।

পরে স্থানীয়রা দপ্তরী আকাব্বরকে নালিতাবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে এবং খোকন মাস্টারকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। হামলার সময় আকাব্বর ছিটপাড়া মহল্লার চা বিক্রেতা আফছর আলীর পুত্র তুহিনকে চিনতে পারেন। বাকীদের চেহেরা দেখলে চিনতে পারবে বলে জানায় আকাব্বর।

আহত শিক্ষক তৌহিদুল ইসলাম খোকন জানান, বিনা অপরাধে সন্ত্রাসীরা তাকে মেরে ফেলার জন্য তার মাথায় চাপাতি দিয়ে কুপ দিয়েছে। সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারপূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান তিনি। এ ব্যাপারে নালিতাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বছির আহমেদ বাদল বলেন, একজন আসামি এজাহার নামীয় বাকীগুলো অজ্ঞাত। তাদেরকে গ্রেফতারের চেষ্টা ও অভিযান অব্যাহত রয়েছে।





এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top