কুসুমহাটি বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ৯ টি দোকান ভস্মীভূত

রাজন মিয়া | প্রকাশিত: ৬ মে ২০২২ ১৯:২২; আপডেট: ২৪ মে ২০২২ ১২:০৭

ছবি: সংগৃহীত

শেরপুর সদর উপজেলার কুসুমহাটি বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার (৬মে) আনুমানিক সকাল ৬ ঘটিকার দিকে ভয়াবহ এ অগ্নিকাণ্ডে ব্যবসায়ীদের ৯টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

সরকারি জরুরি সেবা ৯৯৯ এ ফোন পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে শেরপুর ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চলাকালে পার্শ্ববর্তী জামালপুর ফায়ার সার্ভিসের আরও একটি ইউনিট যোগ হয়ে দীর্ঘ এক ঘন্টা চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হন।

এবিষয়ে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের বরাত দিয়ে শেরপুর ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার বলেন, কুসুমহাটি বাজারের স্বপন ইলেকট্রনিক্সের দোকান থেকে শর্ট সার্কিটে আগুনের সূত্রপাত বলে ধারণা করা হচ্ছে। এতে আগুন মুহূর্তের মধ্যে চারদিক ছড়িয়ে পড়লে ব্যবসায়ীদের মধ্যে আতঙ্ক তৈরি হয়। আগুনে ব্যবসায়ীদের প্রায় ১ কোটি ২০ লাখ টাকার মত ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

সরেজমিনে গিয়ে প্রত্যক্ষদর্শী ও দোকান মালিকদের কাছে জানা যায়, মোঃ মাসুদ রানার স্বত্বাধিকার মর্হুম অহেজ আলী মার্কেটে স্বপন ইলেকট্রনিক্সের মালিক মোঃ স্বপন মিয়া (৩২) এর ওয়ালটন শো রুমে টিভি, ফ্রিজ, মোবাইল-ফোন ও সিলিং ফ‍্যান সহ সকল ইলেকট্রিক মালামাল পুড়ে ছাই,এতে প্রায় ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ ৭০-৮০ লক্ষ টাকা।সীমান্ত মেডিক্যাল হল এর মালিক মোঃ মহসিন আলী (৩৫) এর পাইকারি ঔষধ দোকানের সকল ঔষধ পুড়ে ছাই এতে প্রায় ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ ২০-২৫ লক্ষ টাকা।মীম জুয়েলার্স পুড়ে ছাই এতে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ৩ লক্ষ টাকা। ঔষধ ফার্মেসী অজয় নন্দী (৫০) এর দোকানে প্রায় ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ ২ লক্ষ টাকা। মীম ডিপার্টমেন্টাল স্টোর মিজানুর রহমান এর দোকানের সকল মালামাল আগুনে ভস্মীভূত হয়ে এতে ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ১০ লক্ষ টাকা অধিক । সোহা জুয়েলার্সের আজাদ মিয়ার ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ ২ লক্ষ টাকা। হিয়া টেলিকম হাসেম মেম্বার এর ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ১ লক্ষ টাকা। রবিন এন্টারপ্রাইজ শাহজাহান মিয়ার ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা।মীম টেলিকম মুসলিম উদ্দিনের ক্ষতির পরিমাণ ৩ লক্ষ টাকা।

এবিষয়ে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী স্বপন ইলেকট্রনিকসের মালিক মোঃ স্বপন মিয়া বলেন আমার দোকানের সব কিছু পুড়ে ছাই হয়ে গেছে,ব্যাংক থেকে ৩০-৪০ লক্ষ টাকা ঋণ করে আমি টিভি ফ্রিজের দোকান দেই। এখন আমার তো কিছু রইল না,কিভাবে দেনা পরিষোধ করবো।সরকার যদি আমাদের দিকে দৃষ্টি রাখে তাহলে হয়তো পরিবার নিয়ে মাথা গোজার ঠাঁই পাবো।

ঘটনাস্থলে এলাকাবাসীর কাছে অগ্নিকান্ডের ঘটনা জানতে চাওয়া হলে তারা বলেন স্বপন ইলেকট্রনিকস ওয়ালটন শো রুমে টিভি, ফ্রিজ, মোবাইল-ফোন ও সিলিং ফ‍্যান সহ সকল ইলেকট্রিক মালামাল পুড়ে ছাই। সরকার যদি সূদৃষ্টি কামনা করে ক্ষতিপূরণ দেয়, তাহলে হয়তো একটু হলেও সহযোগিতা পাবে।

অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাস্থল তাৎক্ষণিক পরিদর্শন করেন,শেরপুর সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার মেহনাজ ফেরদৌস।তিনি ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে থাকার এবং সহযোগিতা করার আশ্বাস প্রদান করেন।





এই বিভাগের জনপ্রিয় খবর
Top